কাপ্তাইয়ের দিনমজুর মোহাম্মদ আলীর আকুতি।


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ১৬/১০/২০২২, ৮:০৭ PM / ১০
কাপ্তাইয়ের দিনমজুর মোহাম্মদ আলীর আকুতি।

ঝুলন দত্ত,কাপ্তাই,রাঙ্গামাটি।

মানুষ মানুষের জন্য জীবন জীবনের জন্য। একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না।বিখ্যাত এই গানের কলিটাই যেনো এখন মোহাম্মদ আলীর মনের কথা।

মাত্র ২লাখ টাকার জন্য চিকিৎসা করতে না পেরে পঙ্গুত্ব বরণ করছে মোহাম্মদ আলী (৪৩)।রাঙ্গামাটির কাপ্তাই নতুনবাজার কেপিএম টিলায় বসবাস করে দিনমজুর মোহাম্মদ আলী।

২ছেলে ৩মেয়ে ও স্ত্রী নিয়ে সুখে সংসার চালাত। ২৯ডিসেম্বর ২০১৯সালে কাজ করার সময় পায়ের ওপর গাছ পড়ে মোহাম্মদ আলীর বাম পায়ের তিনটি হাড় ভেঙ্গে যায়। পায়ের চিকিৎসা করতে সহায় সম্বল হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছে। কাজ করতে না পেরে ছেলে মেয়েদের পড়ালেখা বন্ধ হয়ে গেছে।

চট্রগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসা করার পর পায়ের মাংস খসে পড়েছে। দীর্ঘ তিন বছর পঙ্গুত্ব বরণ করে চলছে। সংসার চালাবে না পায়ের সুচিকিৎসা করবে। দিশেহারা হয়ে পড়েছে আলী। সংসার এবং ছেলে-মেয়েদের পড়া লেখা করার জন্য একপা দিয়ে নতুনবাজার একটি টেইলার্সের দোকানে কাজ করছে। যা পায় কাজ করে তা দিয়ে টেনে-টুনে সংসার চালায়।

কথা হয় এ প্রতিনিধির সাথে অসহায় মোহাম্মদ আলী জানান, আমি কাজের মানুষ কাজ করে সংসার চালিয়ে আসছি। হঠ্যৎ করে আমার পায়ের ওপর গাছ পড়ে আমি চিকিৎসা করাতে না পাড়ায় পঙ্গুত্ব বরণ করে আছি।চট্রগ্রামের চিকিৎসক আমাকে জরুরি ভিত্তিতে সার্জারি করার জন্য চট্রগ্রাম অর্থোপেডিক সার্জারি অধ্যাপক ডাক্তার চন্দন কুমার দাশ নিকট রেফার করে। সেখানে বিভিন্ন খরচ বাবদ দেড় লাখ টাকা থেকে ২লাখ টাকা প্রয়োজন। সহায় সম্বল হারিয়ে আমি এখন নিঃস্ব হয়ে পড়েছি। এত টাকা আমার পক্ষে রোজগার করা সম্ভব নয়।

দিন,দিন পায়ের অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে। কেউ কেউ বলছে দ্রুত সার্জারি বা চিকিৎসা করা না হলে ক্যান্সার অবধারিত। আমি সুস্থ হয়ে কাজ করতে চাই।সমাজে আমি বোঝা হয়ে থাকতে চাই না। তাই সমাজের সকলস্থরের লোকদের নিকট আমার পায়ের সুচিকিৎসার জন্য সাহায্যের আবেদন করছি। যোগাযোগ ঠিকানাঃ মোহাম্মদ আলী, বিকাশ (০১৮৩১৫-৩৯৬৮০)।কাপ্তাই নতুনবাজার কেপিএম টিলা।

 

 

সড়ক উন্নয়ন ও ব্রীজ নির্মাণ কাজ উদ্ধোধন করলেন-দীপংকর তালুকদার এমপি