নিখোঁজ দুই স্কুল ছাত্রীর সন্ধান মিলেনি


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ০৩/০৭/২০২৪, ৭:৫৮ PM / ১৭
নিখোঁজ দুই স্কুল ছাত্রীর সন্ধান মিলেনি

ডেস্ক নিউজ।

 

নিখোঁজের ৭২ ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও কি ঘটেছে দুই স্কুল ছাত্রীর সাথে তা এখনো নিশ্চিত করে কেউ বলতে পারছে না।
বান্দরবানের থানচি উপজেলায় সাঙ্গু নদীতে নৌকা ডুবির ঘটনায় হানারাং পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী শান্তি রানি ত্রিপুরা(১০) এবং থানচি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ফুলবানী ত্রীপুরা নামে দুই ছাত্রী নিখোঁজের ঘটনার ৭২ ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও সন্ধান মিলেনি তাদের।
গত সোমবার (১লা জুলাই) ইঞ্জিন চালিত নৌকায় করে যাওয়ার পথে প্রবল বৃষ্টি ও স্রোতের কারনে উপজেলার পদ্মঝিরি, চিংড়ি ঝিরি এলাকায় নৌকা ডুবির ঘটনায় নিখোঁজ হয় দুই স্কুল ছাত্রী। নিখোঁজ স্কুল ছাত্রী ফুলবানী ত্রীপুরা থানচি উপজেলার তিন্দু ইউপির ৫ নং ওয়ার্ডের হরিশ চন্দ্র পাড়ার বাসিন্দা নিলাপ্রু ত্রীপুরার মেয়ে,নিখোঁজ শান্তি রানি ত্রীপুরা একই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা মুক্তিজন ত্রিপুরার মেয়ে।

এই দুই পরিবারের নিকট আত্মীয় প্রশান্ত ত্রীপুরা জানান গতকাল সকাল থেকে সারাদিন তাদের খুজেছি,মনে হচ্ছে তারা বেঁচে নেই। তাদের পরিবারের সদস্যরা খুবই কস্টে আছে,প্রশাসনের কেউ আজকে খুজতে না গেলেও আমরা আজকেউ তাদের খুজতে যাবো।
এদিকে নিখোঁজের পর হতে থানচি ফায়ার সার্ভিস টিম উদ্ধার কার্যক্রম পরিচালনা করলেও এখনো পর্যন্ত নিখোঁজ দুই স্কুল ছাত্রীর কোন খোজ মিলেনি।

এ বিষয়ে তিন্দু ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ভাগ্যচন্দ্র ত্রিপুরা জানান গতকাল থেকে উপজেলা প্রশাসন ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ঐ এলাকায় খোজাখুজি করেও কোন স্থানে তাদের লাশ ভেসে উঠেছে বলে খবর পাই নি,আজকেও আবার উদ্ধার কাজে যাবো।
বুধবার (৩ জুলাই) সকালে এ বিষয়ে থানচি ফায়ার সার্ভিস অফিস এর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তরুন জৌতি বড়ুয়া বলেন নিখোঁজের পর হতে উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করছি,তবে নিখোঁজের স্থানে তাদের পাওয়া যাবে বলে মনে হচ্ছে না,সাঙ্গু নদীর স্রোত বেশি তাই তারা অন্য কোথাও ভেসে গিয়েছে বলে মনে হচ্ছে।তাদের খুজতে আজকেও আমরা বের হবো।

এ বিষয়ে থানচি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মামুন বলেন সাঙ্গু নদীতে প্রবল স্রোত, আর স্রোতের প্রবলতা এতো বেশি যে ঐখানে উদ্ধার কার্যক্রম পরিচালনা করতেও সমস্যা হচ্ছে,তিনি বলেন উপজেলা ফায়ার সার্ভিস অফিসে প্রশিক্ষিত ডুবুরি দল না থাকাতে উদ্ধার কার্যক্রম কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে।তবে তাদের উদ্ধারে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে।