“পার্বত্যরত্ন” উপাধ পেলেন বীর বাহাদুর উশৈসিং


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ১৭/০৩/২০২২, ৯:৫৩ PM / ১৩
“পার্বত্যরত্ন” উপাধ পেলেন বীর বাহাদুর উশৈসিং

মোঃ শহীদুল ইসলাম রানা, বান্দরবান সংবাদদাতা:
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন ও বীর বাহাদুরকে ‘পার্বত্যরত্ন’ উপাধী দেয়া হয়েছে।

এ উপলক্ষে বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত অনুষ্ঠানে বীর বাহাদুর বলেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ মানেই বাংলাদেশ, আওয়ামী লীগ মানেই বাংলাদেশ।

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে, আর বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে বাংলাদেশ উন্নয়নের দিকে যাচ্ছে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথেই বাংলাদেশ সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আওয়ামী লীগের একজন কর্মী হিসেবে এটা আমার এবং আমাদের জন্য গর্বের বিষয়।

১৭ই মার্চ বৃহস্পতিবার জেলার রাজার মাঠে বিকেল চারটায় পার্বত্যরত্ন উপাধি প্রধান উপলক্ষে এক আলোচনা সভা আয়োজন করা হয়।

বান্দরবানের সাংসদ ও পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর বলেন, আমি কাজ করি উন্নয়নের জন্য, কল্যাণের জন্য, মানুষকে ভালোবেসে। কোনো উপাধী বা প্রশংসা পেতে নয়। তবে কাজ করে গেলে একদিন এর ফল পাওয়া যায়-এটা আমি বিশ্বাস করি। আপনারা (আওয়ামী লীগ) আমাকে ভালোবেসে, নিজেদের সন্তান মনে করে যে উপাধী দিচ্ছেন- তা আমার জন্য পরম পাওয়া, এ উপাধীর মূল্য যেন আমি রাখতে পারি, সে চেষ্টা থাকবে আমার সবসময়।

প্রসঙ্গত, বান্দরবান ৩০০নং সংসদীয় আসন থেকে বীর বাহাদুর আওয়ামী লীগের হয়ে ছয়বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১০৯১ সালে ৫ম সংসদ থেকে তিনি এ আসনে সংসদ সদস্য। মাঝখানে ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি বিএনপি-জামায়াত জোটের বিতর্কিত স্বল্প সময়ের ৬ষ্ঠ সংসদ নির্বাচনে বিএনপির একজন (সাচিংপ্রু জেরী) নির্বাচিত হয়েছিলেন। সেবার আওয়ামী লীগ সংসদ নির্বাচন বর্জন করেছিল।

বীর বাহাদুর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। যুবলীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ছিলেন। জেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পদে আসীন ছিলেন। বর্তমানে তিনি জেলা আওয়ামী লীগের এক নম্বর সদস্য। বীর বাহাদুরের হাত ধরেই বান্দরবান তথা তিন পার্বত্য জেলার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে বিগত ৩০ বছরে। এজন্য বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগ বীর বাহাদুরকে গতকাল বৃহস্পতিবার উক্ত অনুষ্ঠানে ‘পার্বত্য রত্ন’ উপাধীতে ভূষিত করেন।

বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা সভাপতিত্বে এতে আরও বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবদুর রহিম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক বাহাদুর, প্রচার সম্পাদক সাদেক হোসেন চৌধুরী প্রমুখ।

এর আগে রাজার মাঠে অনুষ্ঠান স্থলে জাতীয় ও সংগঠনের পতাকা উত্তোলন করা হয়। পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর জাতীয় পতাকা ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ক্যশৈহ্লা দলের পতাকা উত্তোলন করেন।