পৌর ছাত্রলীগ কমিটি ভেঙ্গে নতুন কমিটি গঠনের জন্য প্রস্তাব করেছে ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ১২/০২/২০২২, ১২:৪৪ AM / ২২
পৌর ছাত্রলীগ কমিটি ভেঙ্গে নতুন কমিটি গঠনের জন্য প্রস্তাব করেছে ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ

মোঃশহীদুল ইসলাম রানা,(সংবাদদাতা)

বান্দরবান জেলা ছাত্রলীগের কাছে ছাত্রলীগ বান্দরবান পৌর শাখার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে অনাস্থা জ্ঞাপন প্রস্তাব প্রদান করেছে জেলার পৌরসভার ওয়ার্ড ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।১০ই ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার সকালে জেলার পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দেও স্বাক্ষরিত এক বার্তায় বিষয়টি নিশিÍ করে ওয়ার্ড ছাত্রলীগ এবং যার অনুলিপি সদয় অবগতির জন্য প্রদান করা হয়েছে পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদু উশৈসিং এবং জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কাউছার সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক জনি সুশিল বরাবরে।অনাস্থা জ্ঞাপন প্রস্তাবে স্বাক্ষর করেন পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক গন।এক বিবৃতির মাধ্যমে ওয়ার্ড ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ পৌর ছাত্রলীগের কমিটির বিরুদ্ধে নয়টি কারনে অনাস্থা জ্ঞাপনের কথা জানান এবং অনতিবিলম্বে অকার্যকর পৌর কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা করে নতুন কমিটি প্রদানের জন্য প্রস্তাব করেন।
কারন গুলো হলো –
১।   পৌর ছাত্রলীগের বর্তমান দুইজন বিশিষ্ট কমিটি একটি মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি। ২। পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথে ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাথে কোন ধরনের সাংগঠনিক কার্যক্রম গত দুই বছর যাবৎ সংগঠিত হয়নি। ৩। বান্দরবান পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বেচ্ছাচারিতা করে মনগড়া কমিটি জেলা ছাত্রলীগকে প্রদান করে। যে কমিটির মধ্যে অধিকাংশ অছাত্র, বিবাহিত, চাকুরীজিবী ও ফৌজদারী মামলার আসামী। ৪। পৌর ছাত্রলীগ গত দুই বছরে উল্লেখযোগ্য কোন ধরণের শিক্ষামুখি ও গণমুখি কার্যক্রম গ্রহণ করতে ব্যর্থ হয়েছে।  যে গুটি কয়েক কার্যক্রম পরিচালনা করছে তাও স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে অধিকাংশ ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাথে সমন্বয় করেনি। ৫। বর্তমান পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিভেদকরণ নীতি ও একগুয়োমি আচরণের কারণে প্রতিটি ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম ও সক্রিয়তা ঝিমিয়ে পড়েছে। ৬। গত দুই বছর যাবৎ ব্যর্থ কমিটির মাধ্যমে আসন্ন আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন কার্যক্রম পরিচালনা করা ওয়ার্ড ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দদের কাছে উদ্বেগের কারণ হয়ে দাড়িয়েছে। যেহেতু একটি ওয়ার্ড পরিচালনা করেন ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। ৭। পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের ভুল নেতৃত্বের কারণে এই পর্যন্ত পৌর ছাত্রলীগের উদ্দ্যোগে ওয়ার্ড পর্যায়ে কোন ধরণের মিছিল-মিটিং কিংবা সভা-সমাবেশের আয়োজন করতে পারেনি। ৮। বর্তমান পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সাথে ওয়ার্ড ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্ধদের কোন প্রকার যোগাযোগ না থাকায় ঐতিহ্যবাহী এ ছাত্র সংগঠনটি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। ৯ আমরা নিম্নে অনাস্থা জ্ঞাপন কারী ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকগণ একত্বতা পোষণ করছি যে, অনতিবিলম্বে এই অকার্যকর পৌর কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা করে নতুন কমিটি প্রদান করা হোক।এ বিষয়ে পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের সভাপতি মোঃ জুনাইদ বলেন পৌর ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের ২ বছর হয়ে যাওয়ার পরেও এত দিনেও একটি সমন্বয় সভা বা সাংগঠনিক কর্মকান্ডে ওয়ার্ড ছাত্রলীগের মতামতের গুরুত্ব দেয় নি এবং নতুন কমিটির জন্য জেলা ছাত্রলীগের কাছে প্রেরীত তালিকা প্রনয়নের বিষয়েও পৌর ছাত্রলীগ ওয়ার্ড ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করে নি,নানা সমস্যায় জর্জরীত পৌর ছাত্রলীগের কমিটির প্রতি তাই ওয়ার্ড ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ অনাস্থা জ্ঞাপন করে স্বাক্ষর করেছে।এ বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ কাউছার সোগের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ষিয়টি সম্পর্কে কোন মন্তব্য করতে রাজি হন নি এবং জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক জনী সুশীল বলেন পৌর ছাত্রলীগের প্রতি ওয়ার্ড ছাত্রলীগের অনাস্থা জ্ঞাপনের একটা চিঠির বিষয়ে আমি শুনেছি তবে এ ব্যাপারে এখনো কোন কাগজ হাতে আশে নি। তিনি আরো বলেন ছাত্রলীগ একটি সুসংগঠিত সংগঠন,এত বড় একটি সংগঠনের ছাত্রনেতাদের মাঝে কোন ভুলবোঝাবুঝির  কিছু হলে তা সাংগঠনিক ভাবেই মিমাংসার ব্যাবস্থা গ্রহন করবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বান্দরবান জেলা শাখা।