বান্দরবানে ওয়াগ্যোয়াই পোয়েঃ (প্রবারনা পূর্নিমা) শুভ সূচনা করলেন পার্বত্য মন্ত্রী।


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ০৮/১০/২০২২, ১০:২২ PM / ১৩
বান্দরবানে ওয়াগ্যোয়াই পোয়েঃ (প্রবারনা পূর্নিমা) শুভ সূচনা করলেন পার্বত্য মন্ত্রী।

জয়বাংলা নিউজ ডেস্ক-

মারমা  সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব ওয়াগ্যোয়াই পোয়ে বা শুভ প্রবারণা পূর্ণিমা।আদিকাল থেকে তিন মাস ব্যাপী বর্ষাবাস (উপোস) থাকার পর পাহাড়ী মারমা সম্প্রদায়ের জনসাধারণ ধর্মীয় ভাবগম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনায় ওয়াগ্যোয়াই পোয়ে (প্রবারণা পূর্ণিমা) উৎসব পালন করে আসছে।

কথিত আছে বৌদ্ধ ধর্মের প্রবক্তা গৌতম বুদ্ধ এই আশ্বিনী পূর্ণিমায় তার মাথার চুল আকাশে উড়িয়ে দিয়েছিলেন।
তাই আশ্বিনী পূর্ণিমার এই তিথিতে বৌদ্ধধর্মলম্বীরা আকাশে শত শত ফানুস বাতি উড়িয়ে উৎসবটি পালন করেন।

এরই ধারাবাহিকতায় বান্দরবানে মারমা সম্প্রদায় নিয়েছে উৎাবের ব্যাপক প্রস্তুতি।উৎসব উদযাপন কমিটির আয়োজনে ওয়াগ্যোয়াই পোয়েঃ (প্রবারনা) পূর্নিমা
উদযাপন উপলক্ষে ৮ই অক্টোবর শনিবার রাতে জেলার রাজার মাঠ প্রাঙ্গণে ফানুস উড়িয়ে উৎসবের উদ্বোধন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং।

মন্ত্রী বৌদ্ধ ধর্মাম্বলীদের এই মহতী উৎসবের মাধ্যমে সকল ধর্মাম্বলীদের মানুষের কল্যাণের জন্য প্রার্থনা করেন।অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়ার কাজে সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান।

পরে চার দিন ব্যাপী অনুষ্ঠান মালার প্রথম দিনের অংশ হিসেবে “মৈত্রীময় শুভেচ্ছা” মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং ও বিশেষ অতিথি বৃন্দ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার উপ-পরিচালক লুৎফর রহমান,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল,পৌর মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী,পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের বান্দরবান ইউনিটের প্রকল্প পরিচালক আব্দুল আজিজ।সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোঃ শহীদুল ইসলাম,পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি অমল কান্তি দাশ,উজ্জ্বল কান্তি দাশ,পৌর কাউন্সিলর বৃন্দ।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন উৎসব উদযাপন কমিটির সভাপতি থেওয়াং(হ্লা এ মং)।মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন মংউচিং,অর্জুন সারকী,অংমে প্রু,আবুসিং,মংসাইং,মাংমাংসিং,মল্লিকা ও আরডিটিএস।
সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মনোমুগ্ধকর  নৃত্য পরিবেশেন করেন রেহ্ খ্যাইং নাচের দল,নুখ্যাইউ নাচের দল।

মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের উর্ধতন কর্মকর্তা,সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব,বিভিন্ন ইলেকট্রনিকস ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
মহা ওয়াগ্যোয়াই পোয়েঃ (প্রবারনা পূর্ণিমা) উৎসব উদযাপন পরিষদের সুত্রে জানানো হয় ৯ই অক্টোবর সকাল ৭ টায় জেলার পুরাতন রাজার মাঠ হতে রথ যাত্রা করে  শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে ক্যাং এর উদ্দেশ্যে যাত্রা ও সকাল ৮ টায় পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হবে।

ডিসেম্বর অথবা জানুয়ারির শুরুতেই সংসদ নির্বাচন : সিইসি।