বান্দরবানে প্রায় সাড়ে ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ২২০ মিটার গার্ডার ব্রীজের কাজ সম্পন্ন


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ২৫/০৩/২০২১, ৫:০৪ PM / ১৯
বান্দরবানে প্রায় সাড়ে ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ২২০ মিটার গার্ডার ব্রীজের কাজ সম্পন্ন

বান্দরবানের রেইচা-গোয়ালিয়াখোলা এলাকায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) বান্দরবানের বাস্তবায়নে সাংগু নদীর উপর গার্ডার ব্রিজ নির্মাণের ফলে পরিবর্তন হয়েছে অর্থনৌতিক অবস্থার, ভোগান্তী কমেছে সাধারণ জনসাধারণের।

এই ব্রীজ নির্মাণের ফলে বান্দরবান, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম আর রাঙ্গামাটির সড়ক পথের দূরত্ব কমার পাশাপাশি স্থানীয় বাসিন্দাদের দীর্ঘদিনের ব্রীজের কষ্ট লাঘব হলো। এবং  চেমী, শামুকছড়ি, ডলুপাড়াসহ কয়েক লক্ষ মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হবে। পাশাপাশি যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন এবং কৃষি পণ্য আমদানি-রপ্তানি এবং বর্ষা মৌসুমে যাতায়াত সহজ হবে।

বান্দরবান উপজেলার গোয়ালিয়াখেলার সাংগু নদীর ওপর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) বান্দরবানের বাস্তবায়নে  প্রায় সাড়ে ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ২২০ মিটার গার্ডার ব্রীজের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বিগত সময়গুলোতে সাংগু নদীর দু-পাড়ের বাসিন্দারা নৌকা যোগে পারাপার হলে ও বর্ষাকালে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতো, আর ব্রীজ নির্মাণের ফলে যোগাযোগ ব্যবস্থার আমুল উন্নয়নে খুশি এলাবাসী ও পথচারীরা।

এই ব্রীজ নির্মানের ফলে বান্দরবান,কক্সবাজার,চট্টগ্রাম আর রাঙ্গামাটির সড়ক পথের দূরত্ব কমার পাশাপাশি পর্যটনপ্রেমীদের কাছে এই এলাকা এখন হয়ে ওঠেছে আকর্ষনীয় পর্যটনস্পট  হিসেবে। বান্দরবান এসে অনেকেই পরিবার পরিজন নিয়ে এই ব্রীজ ভ্রমনের সাথে সাথে উপভোগ করছে প্রকৃতি আর সাংগু নদীর অপরুপ সৌন্দর্য্য।

ব্রীজ না হওয়ায় আগে নৌকা দিয়ে এপার ওপার যেতে হতো সাধারণ জনগণের আর বর্ষাকালে নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় পার হতে গিয়ে ছোট বড় দুর্ঘটনায় পড়তে হতো সাধারণ পথচারীেেদর, শুধু তাই নয় বর্ষাকালে সাংগু নদীর পানি বৃদ্ধি পেলে  দুপাড়ের সাধারণ যাত্রীদের পড়তে হতো নানা বিড়ম্বনায়। সাধারণ জনগণের চাহিদার প্রেক্ষিতে বান্দরবানের রেইচা-গোয়ালিয়াখোলা ও চট্টগ্রামের চন্দনাইশ ইউনিয়ন এবং বান্দরবান-রাঙ্গামাটি সড়কের ক্যামলং এলাকার মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করার লক্ষে ২০১৬ সালের ১২ই মে ব্রিজটির ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।

আর এই ব্রীজ নির্মাণের ফলে সাংগু নদীর দুপাড়ের প্রায় ৫ হাজার পরিবারের যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়নসহ কৃষি পণ্য আমদানি-রপ্তানি এবং বর্ষা মৌসুমে যাতায়াত সহজতর হয়ে ওঠেছে।

এই ব্রীজ নির্মাণের ফলে এলাকায় পর্যটকদের আগমন বৃদ্ধির সাথে সাথে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার,রাঙ্গামাটির সাথে সড়ক পথে নতুন যোগাযোগ স্থাপিত হয়েছে এবং আগামীতে ব্রীজের পাশাপাশি সড়কগুলো আরো আকর্ষনীয় ও মনোমুগ্ধকরভাবে নির্মাণ করার কথা জানান নির্বাহী প্রকৌশলী ।
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) বান্দরবানের নির্বাহী প্রকৌশলী নাজমুস সাদাত মো: জিললুর রহমান বলেছেন, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) বান্দরবানের বাস্তবায়নে  প্রায় সাড়ে ১৩ কোটি টাকা  ব্যায়ে বান্দরবানের রেইচা এলাকার গোয়ালিখোলা এলাকায় ২২০ মিটার গার্ডারর্ রীজের কাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং এই ব্রীজটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

নির্বাহী প্রকৌশলী নাজমুস সাদাত মো: জিললুর রহমান আরো বলেন, এই ব্রীজ নির্মাণের ফলে এই এলাকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও যোগাযোগ ব্যবস্থার আমুল পরিবর্তন সাধিত হয়েছে এবং এলজিইডি এই ব্রীজের পাশাপাশি উভয় পাশ্বের সড়কগুলো আরো আধুনিকমানের করে নির্মাণ করার কাজ অব্যাহত রেখেছে।
রেইচা-গোয়ালিয়াখোলায় ব্রীজটি দু’পারের যোগাযোগ ব্যবস্থার সেতুবন্ধন ছাড়াও বান্দরবান-রাঙ্গামাটি ও চট্টগ্রামগামী যাত্রীদের আরামদায়ক ও নিরাপদ রুটের পাশাপাশি পর্যটনস্পট হিসেবে ইতিমধ্যে পরিচিতি লাভ করেছে।