বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ছাত্রী যৌন হেনস্থার অভিযোগে গ্রেফতার প্রধান শিক্ষক


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ০৩/০৭/২০২৪, ৭:৫৫ PM / ১৪
বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ছাত্রী যৌন হেনস্থার অভিযোগে গ্রেফতার প্রধান শিক্ষক

ডেস্ক নিউজ।

 

বান্দরবানের আলকিদম উপজেলায় বিয়ের প্রোলভন দেখিয়ে যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে আলীকদম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ বদিউল আলম এবং সহকারী শিক্ষক মোঃ বাবলুর রহমান জুবাইরে এর বিরুদ্ধে।ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার (২ জুলাই) স্কুলের প্রধান শিক্ষককে গ্রেফতার করে আলকিদম থানা পুলিশ।

থানার এজহার সুত্রে জানাযায় আলকিদম উপজেলা নির্বাচনের পরের দিন গত ৯ই মে যথারীতি স্কুল খুল্লে ভুক্তভোগী আলীকদম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেনীর ছাত্রী স্কুলে যায়,এসময় প্রধান শিক্ষকস্কিুলের পাশে তা নিজের আবাসস্থল পরিস্কার করার জন্য ভুক্তভোগী ছাত্রীকে ডেকে পাঠায়।স্কুলের বান্ধবীদের ব্যাগ দিয়ে সে প্রধান শিক্ষকের ঘর পরিস্কার করে,ঘর পরিস্কার শেষে প্রধান শিক্ষক তার বাসার হাড়িপাতিল পরিস্কারের জন্য ছাত্রীকে অনুরোধ করে।

হাড়িপাতিল পরিস্কার করার এক পর্যায়ে প্রধান শিক্ষক ভুক্তভোগীকে পেছন থেকে জড়িয়ে ধরে শররের স্পর্শকাতর স্থানে স্পর্শ করে,ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাধার প্রেক্ষিতে তাকে বিয়ের প্রোলভন দেখায় স্কুলের প্রধান শিক্ষক।

এদিকে স্কুলের বান্ধবিরা তার আসতে দেরি দেখে তাকে খুজতে প্রধান শিক্ষকের বাসায় যাওয়ার পথে একপর্যায় বাসার জানালা দিয়ে প্রধান শিক্ষকের কু-কীর্তি দেখে ফেলে,বান্ধবীরা ভুক্তভোগীর নাম ধরে ডাক দিলে প্রধান শিক্ষক তাকে ছেড়ে দেয়।

সামাজিক লজ্জা ও স্কুলের বদনামের কথা চিন্তা করে পুরো ঘটনার সবকিছুই গোপন রাখে ভুক্তভোগী ও তার দুই বান্ধবী।ঘটনার পরে ভুক্তভোগী ছাত্রী স্কুলে গেলে তাকে বিভিন্ন সময়ে খারপ ইশারা ইঙ্গিতে তার বাসায় ডাকে প্রধান শিক্ষক,তার কথায় সাড়া না দিলে লাল টিসি দিয়ে স্কুল থেকে বের করে দেয়ার হুমকি দেয়া হয় ভুক্তভোগী ছাত্রীকে।

পরবর্তীতে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক ঘটে যাওয়া বিষয়টি জানাজানি হবে বুঝতে পেরে কৌশলে ভুক্তভোগী স্কুল ছাত্রীকে স্কুল ট্রান্সফার সার্টিফিকেট দিয়ে স্কুল হতে বের করে দেয়।

এদিকে ঘটনার বিষয়ে আলকিদম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার তবিদুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন ভুক্তভোগী ছাত্রীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঐ দিনি আমরা অভিযান পরিচালনা করে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককে গ্রেফতার করি,আইনি সকল প্রক্রিয়া শেষ করে তাকে আজ বান্দরবান জেলা কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।এছাড়া এই মামলার আরেকজন আসামী এখনো পলাতক আছে ,সে সরাসরি জড়িত না হলেও ভুক্তভোগী ছাত্রীকে হুমকির অভিযোগ পেয়ছি, তাকে ধরতে অভিযান চলমান আছে।