ভোট কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা হলে কেন্দ্র বন্ধ করে দেয়া হবে – বান্দরবান জেলা প্রশাসক


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ০৭/০৫/২০২৪, ৭:১৫ PM / ৪৪
ভোট কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা হলে কেন্দ্র বন্ধ করে দেয়া হবে – বান্দরবান জেলা প্রশাসক

জয়বাংলা নিউজ ডেস্ক।

 

রাত পোহালেই বান্দরবান জেলার দুইটি উপজেলায় অনুষ্ঠিত হবে ৬ষ্ট উপজেলা পরিষদ নির্বাচন।এরই মধ্যে জেলা নির্বাচন কার্যালয় হতে ভোটের সরঞ্জাম কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। বান্দরবান সদর উপজেলা পরিষদ ও আলীকদম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা তাদের নির্বাচনী প্রচারণা বন্ধ করে শেষ সময়ের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

এদিকে জেলা নির্বাচন কার্যালয়ের দেয়া তথ্য মতে এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বান্দরবান সদর উপজেলায় ৬ টি ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ৭১ হাজার চারশত চৌচল্লিশ জন এর মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ৩৭ হাজার পাচঁশত সত্তর জন জন এবং মহিলা ভোটার সংখ্যা ৩৩ হাজার আটশত চুয়াত্তর জন।সদর উপজেলায় ৪৫ টি ভোট কেন্দ্রের ১৬৯ টি ভোট কক্ষে ভোট গ্রহণ করা হবে।

আলীকদম উপজেলার চারটি ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা রয়েছে ৩২ হাজার ৮০৫ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১৬ হাজার ৫২১ জন এবং নারী ভোটার ১৬ হাজার ২৮৪ জন। আলীকদম উপজেলায় মোট ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ২১টি এবং ভোট কক্ষের সংখ্যা ৯৪টি।
এদিকে আজ সকালে সাংবাদিক কল্যান ট্রাস্টের চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে নির্বাচন বিষয়ে জেলা প্রশাসক জানান নির্বাচন পর্যবেক্ষণে সদর উপজেলায় একজন অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এবং আলীকদম উপজেলায় একজন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবে।

নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দুর্গম এলাকার ভোটের ফলাফল জানতে হোয়াটসঅ্যাপ ও সেনাবাহিনীর ওয়্যারলেস এর সহযোগিতা নেয়া হবে।প্রতি তিনটি কেন্দ্রে একটি মোবাইল টিম নিয়োজিত থাকবে।এবং কোন কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা হলে সাথে সাথে কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত করে বাতিল করা হবে।এছাড়া জরুরি প্রয়োজনে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নাম্বারে জানানোর জন্য সকলের নিকট আহ্বান জানান।

এদিকে মঙ্গলবার (৭ মে) বিকেলে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের শেষ মূহুর্তের প্রস্তুতি পরিদর্শনের অংশ হিসেবে পৌরসভার বালাঘাটা বিলকিস বেগম উচ্চ বিদয়ালয় পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক শাহ্ মোজাহিদ উদ্দিন, জেলা পুলিশ সুপার সৈকত শাহীন সহ জেলার সরকারি উর্ধতন নেতৃবৃন্দ।

এসময় জেলা প্রশাসক বলেন বান্দরবান জেলার দুইটি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।নির্বাচনে নিরাপত্তার আপাতত কোন ঝুকি নেই।নির্বাচনে নিরাপত্তায় পুলিশ,আনসার,বিজিবি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে এছাড়া নিয়ম অনুযায়ী যতটুকু নিরাপত্তা বাহিনী রাখার কথা তার চেয়ে বেশি সংখ্যক নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।তিনি বলেন আমরা আশা করছি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী ভোটারের চেয়ে এবার ভোট কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি বেশি হবে।
নিরাপত্তা বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার সৈকত শাহীন বলেন নির্বাচন কে সামনে আমরা আমাদের নিরাপত্তা পরিকল্পনা প্রনয়ন করেছি।

প্রতিটি কেন্দ্রে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন,মোবাইল টিম,স্ট্রাইকিং ফোর্সের সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে।তিনি বলেন নির্বাচনকে শতভাগ গ্রহণযোগ্য করার জন্য যে ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হয় আমরা তা করেছি।

ভোট কেন্দ্র পরিদর্শনকালে আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) হোসাইন মোঃ রায়হান কাজেমি,জেলা নির্বাচন অফিসার এস এম শাহাদাত হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে হাবিবা মিরা সহ প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তা বৃন্দ।