রাঙ্গামাটি বিদুৎ উন্নয়ন বোর্ডে ভেদভেদী সাব স্টেশনে ক্যাবল চুরি


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ১৩/০২/২০২৪, ৯:৩২ PM / ৭৪
রাঙ্গামাটি বিদুৎ উন্নয়ন বোর্ডে ভেদভেদী সাব স্টেশনে  ক্যাবল চুরি

 

রাঙ্গামাটি বুর‍্যো।

আবারো রাঙামাটি বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের অফিসে বাউন্ডারীর ভিতরে ফিডার ক্যাবল চুরির ঘটনা ঘটেছে । ভেদভেদী পিডিবির ষ্টোর সংলগ্ন সাবষ্টেশন উপকেন্দ্রের ফিডার ক্যাবল সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি)  রাতে চুরি হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ঠিকাদার সুত্রে জানা যায় ক্যাবল বাজার মুল্য আনুমানিক মুল্য প্রায় ৮ লক্ষ টাকা । রাতেই ক্যাবল চুরি হলেও এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় অভিযোগ করা হয়নি। জাকির নামে এক কর্মচারী জানায়, বিদ্যুৎ অফিসের পিছনে বাউন্ডারী ভিতরে এসব ফিডার ক্যাবল চুরি হয়েছে বলে শুনেছি ,তবে সিসি ক্যামড়া থাকার পরও সংরক্ষিত এলাকায় চোরকে সনাক্ত ও কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। সহকারী প্রকৌশলী ওয়াহেদ ইমতিয়াজ শীতল, ষ্টোরদায়িত্ব উপসহকারী প্রকৌশলী, এসবিএ এরশাদ ও নিরাপত্তা প্রহরী কেউ জানে না বলে পিডিবি অফিস সুত্রে জানা যায়।
সাবষ্টেশন ও অফিসের সামনের প্রত্যক্ষদর্শী জানায়, উপকেন্দ্রের তার চুরি বিষয়ে আমরা শুনেছি ,পিডিবির কর্মচারী জাকির প্রতিবেদককে জানায়, রাতে কেবা কারা তারগুলি চুরি নিয়ে যায় আমরা জানি না।
এই বিষয়ে প্রধান প্রকৌশলী ,বিতরণ দক্ষিণাঞ্চল,বিউবো ,চট্টগ্রাম মুঠোফোনে বলেন, বিষয়টি আমি দেখবো।
রাঙামাটি নিবার্হী প্রকৌশলী জালাল উদ্দীন বলেন , আনুমানিক ৩ মিটার ফিডার ক্যাবল চুরি হয়। কোতয়ালী থানায় সাধারণ ডায়েরী করা হয়।

প্রসঙ্গত: তথ্য কমিশনের সভার সিদ্ধান্ত অবহিতকরণ প্রসঙ্গে। প্রতিবেদকের ১১-১০-২০২৩ তারিখে সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা (আরটিআই) রাঙামাটি বিদ্যুৎ বিতরন বিভাগের বিরুদ্ধে যথাযথ তথ্য প্রদান না করা সংক্রান্ত অভিযোগের বিষয়টি তথ্য কমিশন সভায় আলোচনা হয়। দায়েরকৃত অভিযোগের সাথে কাগজপত্র পর্যালোচনায় দেখা যায়, সংশ্লিষ্ট দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (আরটিআই)জবাব প্রদান করেছেন। ( আরটিআই) কর্তৃক প্রদক্ত জবাব গ্ৰহনযোগ্য বিধায় অভিযোগটি খারিজ করা হয়। সোহানা নাসরিন উপপরিচালক স্বাক্ষরিত ৩১.১.২৪ (গ.প্র.প্র.)তথ্য কমিশন বাংলাদেশ।স্বারক নং১৫.৫১.০০০০.৬০৩.০৪.০০১.১৮.৮৪৫ ।
এইভাবে একাধিক তার চুরি বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করা হলেও কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। রাঙাপানি একবার চোর হাতেনাতে ধরলেও সহকারী প্রকৌশলী ওয়াহেদ ইমতিয়াজ শীতল সাধারণ ডায়েরী করে দায়িত্ব শেষ। তড়িৎবিদ গিয়াস উদ্দীনের বিরুদ্ধে হাজাছড়া তার চুরি বিষয়ে অভিযোগ করে স্থানীয় মেম্বার, এর আগেও প্রাক্তন নির্বাহী প্রকৌশলী সবুজ কান্তি মজুমদার তার চুরি বিষয়ে কারণ দর্শানো নোটিশ প্রদান করেন।
প্রতিবেদক একাধিকবার তথ্য অধিকার আইনে আবেদন করলে যাচিত তথ্য প্রদান করেন,যা অসম্পুর্ণ ও বাস্তবতার সাথে সাদৃশ্য নয়। তথ্য প্রদানে উল্লেখ করা হয়েছে সিডিউল মোতাবেক কাজ সম্পন্ন হয়। গত বছর জুন মাসে আবাসিক এলাকার গেইট পরিবর্তন ও বাউন্ডারী ওয়াল উচকরণ করার জন্য মিরাজ এন্টারপ্রাইজ এর নামে দরপত্র দেখানো হয়। প্রায় ৮ লক্ষ টাকার কাজ না করে বিল উক্তোলন করা হয় । যার অডিট আপক্তি করা হয়। ঐ বিলে সাবেক ষ্টোর কিপার হুমায়ন কবির স্বাক্ষর করেনি বলে জানাগেছে। তথ্য প্রদানে বহিরাগত কেউ থাকে না বলে উল্লেখ করলেও বাস্তবে মো: সিরাজ পাম্প চালক ও অস্থায়ী গাড়ী চালক শামীম স্ব-পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছে । আরো উল্লেখযোগ্য কালিন্দিপুর মুখে ৭ তলা বিল্ডিং এ দুই ব্যক্তির নামে আবেদন আনুমোদন ব্যাংক পেমেন্ট ব্যতীত ১০ টি প্রি পেইট মিটার স্থাপন করার অভিযোগটি দৃশ্যমান? এই ধরনের কোন অভিযোগ রাঙামাটি বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ আজ পর্যন্ত ব্যবস্থা না নেওয়ার ফলে তারচুরিসহ অনিয়ম দুর্নীতি বেড়ে গেছে।
উল্লেখ্য যে ,ফিডার ক্যাবল এক্সলপিই চুরি নতুন নয়,এর আগেও ক্যাবল চুরি বিভিন্ন সময় একাধিক অভিযোগ করা হয়েছে।