লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রি লিঃ এর ৮ হাজারেরও বেশি রাবার গাছ কেটে ফেলেছে সন্ত্রাসীরা


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ১২/০৮/২০২২, ১১:৫৩ AM / ১১
লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রি লিঃ এর ৮ হাজারেরও বেশি রাবার গাছ কেটে ফেলেছে সন্ত্রাসীরা

জাহিদ হাসান,লামা প্রতিনিধি।।

লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রির লিঃ এর রাবার বাগানের হাজার হাজার রাবার গাছ কেটে চলছে পাহাড়ি সন্ত্রাসী রংধোজন ত্রিপুরা গং। ৯ আগষ্ট থেকে এই ধ্বংস লীলায় মেতে উঠেছে ডলু মৌজার যোহান হেডম্যান এর মদদপুষ্ট একটি গ্রুপ। এর কয়েক মাস আগে লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রির বাগানে আগুন লাগিয়ে দিয়ে উল্টা ইন্ডাস্ট্রির বিরুদ্ধে মামলা করেছিল।

পরিকল্পিতভাবে আগুন লাগানোর ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে, দেশের কথিত বুদ্ধিজীবীরা একতরফা বক্তৃতা বিবৃতি দিয়ে বিভ্রান্ত করেছিল স্থানীয় প্রশাসনসহ সর্ব মহলকে। এদিকে কয়েক মাস যেতে না যেতেই নতুন করে ধ্বংসযজ্ঞে মেতে উঠেছে ভূমি দস্যু সন্ত্রাসী দলটি। ১১ আগষ্ট সরেজমিন অনুসন্ধানে জানাযায়, রংধজন ত্রিপুরা, মতি ত্রিপুরা, পদরাম ত্রিপুরা, ওয়াসিং ত্রিপুরা গং এর নেতৃত্বে লাকুম মুরুং, রিংরং মুরুং, রেংএন মুরুং, ইংইয়ং মুরুং, দুইথং মুরুং, ইয়ংইং মুরুং, কাদো মুরুংসহ ২০/২৫ জন মিলে ৯ আগষ্ট থেকে লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রির ২০২১ সালে সৃজিত রাবার গাছ নির্বিচারে কর্তন করে চলছে। জানাযায়, এ পর্যন্ত ৮ হাজারের মতন গাছ কেটেছে। ১০ আগষ্ট পুলিশ গিয়ে তাদের গাছ কর্তনে বাধা দেয়।

কিন্তু তারা বাঁধা তোয়াক্কা না করে আজ ১১ আগষ্ট পর্যন্ত নির্বিচারে রাবার গাছগুলো কেটে ফেলছে(!)। ফলে লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রি অপূরনীয় ক্ষতির শিকার হচ্ছে। এই ব্যপারে লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রি লিঃ ম্যানেজার আরিফ, তাদের তাদের অসহায়ত্বের কথা জানিয়ে বলেন, থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। রাবার গাছ কাটার ব্যপারে লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে কথা হয়। তিনি জানান, “ওসি সাহেবকে বেশি করে ফোর্স নিয়ে গিয়ে অন্যায় বন্ধ করতে বলা হয়েছে”।

নেটওয়ার্ক বিড়ম্বনায় এ ব্যপারে লামা থানার অফিসার ইনচার্জ এর বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। বর্তমানে “লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রিকে বাঁচান” এই আবহ সুর বাজছে ডলু মৌজার আকাশে। সবুজের কান্না যেন থামছেনা সেখানে। নির্বিচারে কর্তিত ছোট ছোট রাবার গাছগুলোর বোবা কান্না পাথরের হৃদকে কাঁদিয়ে তোলে।

কেন এমন নিষ্ঠুর আগ্রাসন। গাছগুলোতো দোষ করেনি। এগুলো দেশের সম্পদ শিল্প পণ্য রাবার তৈরির উৎস। অক্সিজেনের সবুজ ভান্ডার। কেন সন্ত্রাসী রংধজন ত্রিপুরা গং এই ধংস লীলায় মেতে উঠেছে? এমন প্রশ্ন স্থানীয়দের। দেশের শিল্প ধ্বংসকারীদেরকে আইনের আওতায় আনার দাবি উঠেছে স্থানীয়ভাবে।

 

 

রোহিঙ্গা ভোটার সহায়তা আলীকদমে দুই ইউপি চেয়ারম্যান সহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা -৩ জনের জামিন মঞ্জুর