৩ মাস বন্ধ থাকার পর চালু হয়েছে বাঁশ পরিবহন।


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ০৯/০৯/২০২২, ১২:২৯ AM / ১০
৩ মাস বন্ধ থাকার পর চালু হয়েছে বাঁশ পরিবহন।
ঝুলন দত্ত, কাপ্তাই ( রাঙামাটি)।

তিনমাস বন্ধ থাকার পর বাঁশ পরিবহণ চালু হয়েছে কাপ্তাইয়ে। বৃহস্পতিবার (৮সেপ্টেম্বর) রাঙামাটি কাপ্তাই আপষ্ট্রিম জেটিঘাটে কাপ্তাই লেক হতে ট্রাকে বাঁশ বোঝাই শুরু হয়। এইসময় ট্রাকে ট্রাকে করে কাপ্তাই হতে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ব্যবসায়ীদের বাঁশ নিতে ব্যস্ত সময় পার করতে দেখা যায়।

বাঁশের বংশ বিস্তার ও প্রজননের জন্য( জুন হতে আগস্ট) এ তিন মাস সকল ধরনের বাঁশ কর্তন ও পরিবহণ বন বিভাগের পক্ষ হতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়ে থাকে। এ তিন মাস বাঁশ প্রজনন মৌসুম বিধায় পার্বত্যঞ্চলে সকল ধরনের বাঁশ কর্তন ও পরিবহণ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়ে থাকে।

এ মেয়াদ ২সেপ্টেম্বর তারিখ তুলে নেয়া হলেও নানা জটিলতায় তা চালু হয় ৮সেপ্টেম্বর।গত বুধবার বাঁশ ব্যবসায়ী, ট্রাক মালিক এদের নিয়ে জটিঘাট বাঁশ ব্যবসায়ী সমিতি কার্যালয়ে একটি জরুরী সভার মাধ্যমে বৃহস্পতিবার হতে পূর্ণরায় বাঁশ পরিবহণ চালু করা হয়।

বাঁশ ব্যবসায়ী আব্দু্ল মন্নান ও আবুল কাশেম জানান ২সেপ্টেম্বর হতে বাঁশ পরিবহণের চালু করা হলেও বিভিন্ন জটিলতা ও ট্রাক পরিবহণভাড়া বৃদ্ধি পাওয়ায় বাঁশ ব্যবসায়ী কার্যক্রম বন্ধ রাখে।

আবুল কাশেম নামে একজন ব্যবসায়ী বলেন আগে একট্রাক বাঁশ বোঝাই করে ঢাকা নিতে ট্রাকভাড়া লাগত ৩৩হাজার ৩৭০টাকা। কিন্তু তেলের দাম অতিমাত্রায় বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে বর্তমান একটি ট্রাক বোঝাই বাঁশের গাড়ি ঢাকা নিতে মূল্য হচ্ছে ৪০হাজার ৩৭০টাকা।

এতে বাঁশ ব্যবসায়ীর মাথায় হাত।বাঁশের চেয়ে পরিবহণ মূল্য বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলে ব্যবসায়ীরা আগামিতে বাঁশ ব্যবসায় নিরুৎসাহিত হয়ে পথে বসার শঙ্কা প্রকাশ করছে।

বাঁশ ব্যবসায়ী প্রতিনিধি ফজল আলম ও নুরুল আলম বাটন জানান ক্ষতি পোষাতে না পারলে আগামিতে পার্বত্যঞ্চল হতে বাঁশ ব্যবসা চিরতরে বন্ধ হয়ে যাবে। কোন ব্যবসায়ীরা লস দিয়ে ব্যবসা করবেনা। যার ফলে সরকার রাজস্ব হারাবে,এবং পাশাপাশি ট্রাক পরিবনহণ ও ব্যবসায়ীর ক্ষতি হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে।

কাপ্তাই জেটিঘাট বনশুল্ক পরীক্ষণ ফাঁড়ি স্টেশন কর্মকর্তা আনোয়ার হোসাইন জানান প্রতি বছরের ন্যায় পার্বত্য চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগ হতে জুন হতে আগস্ট বাঁশ বংশ বিস্তারের জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। যার ফলে এই তিনমাস কোন ধরনের বাশ পার্বত্য অঞ্চল হতে পরিবনহণ বন্ধ থাকে।

 

সড়কের ওপর ফিটফাট ভিতরে সদরঘাট।