ইউজিডিপি’র সহায়তায় ডংনালায় সেচ ড্রেনের মাধ্যমে   প্রথমবারের মত বোরো আবাদ করল কৃষকরা


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ০৭/০৫/২০২৩, ১:১৯ PM / ১৩৮
ইউজিডিপি’র সহায়তায় ডংনালায় সেচ ড্রেনের মাধ্যমে   প্রথমবারের মত বোরো আবাদ করল কৃষকরা

ঝুলন দত্ত, কাপ্তাই ( রাঙামাটি) প্রতিনিধি।

 

রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার ২ নং রাইখালী ইউনিয়নের ডংনালা উপরপাড়ায় চলতি মৌসুমে প্রথমবারের মত বোরো ধানের  চাষ  করা হয়েছে। সেচ ব্যবস্থা না থাকায় এতদিন এ এলাকার বোরো মৌসুমে প্রায় ৫ হেক্টর জমি অনাবাদি  পরে থাকতো বলে কৃষকরা জানান ।

কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের উদ্যােগে
উপজেলা পরিচালন ও উন্নয়ন প্রকল্পের ( ইউজিডিপি’র) সহায়তায় ২০২১-২১ এবং ২০২২-২৩ অর্থবছরে ২ ধাপে মোট ২ শত ৬৫ মিটার লম্বা সেচ ড্রেন নির্মাণের ফলে এ এলাকার কৃষকরা প্রথমবারের মত বোরো মৌসুমে চাষ করার সুযোগ পায় বলে জানান কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজুল হক ।

বর্তমানে ধান কাটার মৌসুমে কৃষকরা ঘরে ধান তুলকে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

গত শনিবার(৬ মে)  সকাল ১০ টায় ডংনালা এলাকায় গিয়ে কথা হয় স্থানীয় প্রবীণ কৃষক  চিং প্রু অং মারমার সাথে। তিনি জানান, বর্তমানে তাঁর বয়স ৬০ চলছে।  তাঁর দীর্ঘ জীবনে তিনি কখনোই তাদের জমিতে বোরো মৌসুমে চাষ করতে দেখেননি। উপজেলা পরিচালন ও উন্নয়ন প্রকল্পের সহায়তায় চলতি বছরের জানুয়ারী মাসে ড্রেন নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হলে কৃষকরা ধান আবাদ করেন। এখন  মাঠ জুড়ে সোনালী ধান দেখে আমরা সত্যিই খুশি ।
স্থানীয়  উপকারভোগী মুচিংবাইন মারমা  জানান তিনি তার ২ একর জমিতে ধান বুনেছেন এবং  প্রায়  ১ মেট্রিকটন  ধান প্রাপ্তির আশা করছেন।

এছাড়া ঐ এলাকার কৃষক  আবেইশি মারমা,চাবাইউ মারমা  এবং মংবাচিং মারমা    সহ অনেকেই  ড্রেনটির মাধ্যমে সেচ ব্যবস্থাপনার জন্য ইউজিডিপি ও উপজেলা পরিষদকে ধন্যবাদ জানান।

স্থানীয় ইউপি সদস্য উচহ্লা মারমা জানান, এই সেচ ড্রেনটি অত্র এলাকার মানুষের আর্থ সামাজিক অবস্থা পরিবর্তনে একটি বিশেষ ভূমিকা রাখবে। তবে  এ এলাকার আরো প্রায় ১. ৫০ হেক্টরের মত জমি সেচ ব্যবস্থাপনার আওতায় আসেনি। আগামীতে ড্রেনটি আরো সম্প্রসারণ করা হলে এলাকার আরো অনেক কৃষক উপকৃত হবেন।

কাপ্তাই উপজেলা পরিচালন ও উন্নয়ন প্রকল্পের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  ঝিমি চাকমা জানান, এলজিইডি কাপ্তাই এর সার্বিক  তত্ত্বাবধানে ২ ধাপে এ ড্রেনটির কাজ করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদ চাইলে পরবর্তীতে ড্রেনটি সম্প্রসারণ করতে পারে।

তিনি আরো জানান ড্রেনটির পাশে একটি ছড়া রয়েছে। সেখান থেকে মোটর ও পাইপের মাধ্যমে সেচ ব্যবস্থাপনা করা হচ্ছে। এলাকার সকল কৃষকের  সমন্বিত উদ্যােগে  কাজটি সুন্দরভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে ।

 

 

 

আরো পড়ুন-

 

 

জোড়াতালিতে চলছে লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স