বান্দরবানে বন্যার্ত জনসাধারণের পাশে একজন বীর বাহাদুর


জয় বাংলা নিউজ প্রকাশের সময় : ১৩/০৮/২০২৩, ৪:০৪ PM / ১৫৮
বান্দরবানে বন্যার্ত জনসাধারণের পাশে একজন বীর বাহাদুর

জয়বাংলা নিউজ ডেস্ক।

অতি বৃষ্টির কারনে বান্দরবান জেলা সদর সহ উপজেলা গুলোতে স্বরনকালের ভয়াবহ বন্যায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে প্রায় ত্রিশ হাজারেরো অধিক ঘরবাড়ি পানির নিচে তলিয়ে গেছে,শেষ সহায় সম্বল টুকুও টিকাতে পারে নি অনেকেই।বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সরকারি দপ্তর সহ অনেক বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ক্ষতির পরিমানো হতে পারে কয়েক শতকোটি টাকারো উপরে


বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত জনসাধারণের দুয়ারে ছুটে গেছেন বান্দরবানে ৩০০নং আসনে টানা ৬ বারের নির্বাচিত এমপি বর্তমান পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এর পরিবার।

বন্যার সময়ে মন্ত্রী বান্দরবানের বাইরে থাকার পরেও তার সহধর্মিণী মিসেস মেহ্লা প্রু দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে জেলা সদরের বন্যা কবলিত এলাকায় চালিয়ে গেছেন ত্রান কার্যক্রম,বন্যায় কবলিত হয়ে সড়ক যোগাযোগ প্রায় অন্য জেলার সাথে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিলো।সড়ক যোগাযোগ স্বাভাবিক হওয়ার সাথে সাথে বান্দরবানে ছুটে আশেন পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর।


আশার পরপরি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা গুলো পরিদর্শন করেন ক্ষয়ক্ষতি নিরুপনে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাড়ান,রেডক্রিসেন্ট সহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের মাধ্যমে ত্রান কার্যক্রম পরিচালনা করেন, বিত্তবানদের অনুরোধ করেছেন নিজের অবস্থান থেকে বন্যা কবলিত মানুষের পাশে দাড়াতে।মানবিক সহায়তা পরিচালনায় বাদ যায়নি মন্ত্রী পরিবারের মন্ত্রী পুত্র বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সাংসদের সহ-সভাপতি উসিংহাই রবিন বাহাদুর বন্যায় বিদ্যুৎহীন রাতের আধারে জেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে ছুটে গেছেন জেলা সদরে বন্যায় পানি বন্দি মানুষের দুয়ারে।


পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এর নির্দেশনা অনুযায়ী এরি মধ্যে ১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের জেলা আওয়ামীলীগের কর্মসূচিতে এসেছে কিছু পরিবর্তন।স্বাভাবিক দলীয় কর্মসূচির পাশাপাশি এবারে গনভোজের আয়োজন বাদ দিয়ে বান্দরবান পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে বসবাসকারী ২০ হাজার বন্যাকবলিত জনসাধারনকে দেয়া হবে ত্রান ও খাদ্য সামগ্রী।এছাড়াও জেলার প্রত্যেকটি উপজেলায় উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদেরও দেয়া হয়েছে একই নির্দেশনা বিষয়টি নিশ্চিত করেন বান্দরবান জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক লক্ষীপদ দাশ।


এরই মধ্যে পার্বত্য মন্ত্রীর দিকনির্দেশনায় বান্দরবান পার্বত্য জেলাপরিষদ বন্যাকবলিত এলাকার জন্যা বরাদ্দ দিয়েছে ৪৩ লক্ষ টাকা ও ৩০ মেট্রিকটন চাল।

এরই মধ্যে জেলা বন্যা কবলিত এলাকায় বসবাসকারী জনসাধারণের মাঝে জেলা প্রশাসন ও জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের পক্ষ হতে ২ লক্ষ ৬০ হাজার লিটার বিশুদ্ধ খাবার পানি বিতরণ করা হয়েছে, এবং প্রধানমন্ত্রীর উপহার ত্রান ১৬৮ মেঃটন চাল ও ৬ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে বন্যাদুর্গতদের জন্য।

এই দুঃসময়ে সকলকে সাথে নিয়ে দেশের জনপ্রিয় পর্যটন নগরী বান্দরবান আবার ঘুরে দাড়াবে এটাই যেনো এখন সবার শ্লোগান।